গত ২ অক্টোবর রাতে মুম্বাই উপকূলে একটি প্রমো;দতরী থেকে বলিউডের বাদশা খ্যাত শাহরুখ খানের ছেলে আরি;য়ান খানসহ ৮ জ;নকে আ;টক করে ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)।

পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আরিয়ানসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে মুম্বাইয়ের আর্থার জেলে রয়েছেন আরিয়ান। ছেলেকে জে;ল থেকে বের করতে বিভিন্ন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন শাহরুখ। বারবার জামিন আবেদন করেও কাজ না হওয়ায় নতুন আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছেন তিনি।

বর্তমানে আরিয়ানের মাম;লা লড়ছেন অমিত দেশাই। যিনি ২০০২ সালে বলিউড সুপারস্টার সালমান খানকে ‘হিট অ্যান্ড রান’ কেস থেকে ছাড়িয়েছিলেন। কিন্তু অমিত দেশাইকে দিয়েও ছেলের জামিন করাতে পাচ্ছেন না বলিউড বাদশাহ।

গতকাল বুধবার (১৩ অক্টোবর) ফের আদালতে আরিয়ান খানের জামিন আবেদন করা হয়। কিন্তু তা বিরোধিতা করেছে মা;দক;দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। জামিন শুনানিতে আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবি এনসিবি’র।

তারা বলছেন, আন্তর্জাতিক মাদকচক্রের সঙ্গে যোগ রয়েছে আরিয়ান খানের। আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে এ সংক্রান্ত তথ্য-প্রমাণ এনসিবির হাতে এসেছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে আরিয়ানের আইনজীবী অমিত দেশাই আদালতকে জানিয়েছেন, আরিয়ান খান ওই প্রেমোদতরীর ভেতরেই ছিলেন না।

তাকে প্রমোদতরীর গেট থেকে আদটক করে এনসিবি। এ মামলা;য় যা;রা গ্রে;প্তার হয়েছে তা;দের মধ্যে কেবল আরিয়ানের কাছ থেকেই কোনও মা;দক কিংবা বেআ;ইনি জিনিস পাওয়া যায়নি।

দুই পক্ষের শুনানি শেষে এ মা;মলা সাময়ি;কভাবে স্থগিত করে দেন আ;দালত। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) আবার আরিয়ান খানসহ বাকি অভি;যুক্তদের জামিনের আবেদন শুনবেন আদালত।

প্রসঙ্গত, মুম্বাইয়ের একটি প্রমোদতরীর পার্টিতে মা;দ;ক সেব;নের অভি;যো;গে গ্রেপ্তা;র হয়েছেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)-এর কর্মকর্তাদের দীর্ঘ ৬ ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদে মা;দ;;ক গ্রহণের কথা স্বীকার করেছেন আরিয়ান।

তাকে নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস (এনডিপিএস) আইনের আওতায় গ্রে;প্তা;র করা হয়েছে। গ্রেপ্তারি পরোয়ানায় লেখা রয়েছে- ৩০ গ্রাম কোকেন, ২১ গ্রাম চরস, ২২টি এমডিএমএ বড়ি এবং নগদ ১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা পাওয়া গেছে। খবর এনডিটিভির।