সৌদিতে করোনা বিধি না মানলে বড় ধরনের জরিমানা

ঈদ কে কেন্দ্র করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কোভিড-১৯ সতর্কতা ও নির্দেশনা অমান্যে নতুন শাস্তি এবং জরিমানার ঘোষণা দিয়েছে।

ব্যক্তিগত পর্যায়ে জরিমানা ১০ হাজার রিয়াল থেকে ৫০ হাজার রিয়াল, ও কোম্পানির ক্ষেত্রে ১০ হাজার থেকে ১ লাখ রিয়াল পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে।

গতবছর থেকে কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে আরোপ করা নির্দেশনাবলী না মেনে চললে শাস্তির বিধান চালু হয়েছে, তবে এবার এই জরিমানা ও শাস্তির পরিমানে পরিবর্তন এনেছে সৌদি সরকার।

নতুন বিধান অনুযায়ী, যেকোন সামাজিক মেলামেশা এর জন্য দায়ী ব্যক্তি এবং স্থানের মালিক নিন্মোক্ত ক্ষেত্র অনুসারে নিন্মে উল্লেখিত শাস্তি পাবেনঃ

বাড়িতে, রেস্ট হাউজে, ফার্মে, ইত্যাদি স্থানে কর্তৃপক্ষের অনুমতিপ্রাপ্ত সংখ্যার চাইতে বেশী মানুষ নিয়ে পারিবারিক অনুষ্ঠান পালন করা হলে এবং অংশগ্রহনকৃত সদস্যরা যদি একই বিল্ডিং এর না হন, তবে ১০ হাজার রিয়াল জরিমানা।

বাড়িতে, রেস্ট হাউজে, ফার্মে, ক্যাম্পে, উম্মুক্ত স্থানে, ইত্যাদি স্থানে যদি পরিবারের বাইরের অন্যান্য সদস্যদের অনুষ্ঠান পালন করা হয়, তবে ১৫ হাজার রিয়াল জরিমানা।

কুলখানি, উৎসব, বা যেকোন সামাজিক উৎসবে অনুমতির বাইরে অতিরিক্ত সংখ্যায় মানুষজন জমায়েত করা হলে ৪০ হাজার রিয়াল জরিমানা।
যদি একই চাকুরীতে কর্মরত কর্মীরা ভিন্ন ভিন্ন বাসস্থানে থাকা সত্ত্বেও ৫ জন এর বেশি মানুষ কোন বাড়িতে, রেস্ট হাউজে, ক্যাম্পে, বা যেকোন উম্মুক্ত স্থানে জমায়েত হন, তবে ৫০ হাজার রিয়াল জরিমানা।

প্রাইভেট সেক্টরে করোনা নির্দেশনা অমান্যে শাস্তির পরিমান

সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর নির্দেশ অনুযায়ী, যদি কোন কোম্পানি করোনা নির্দেশনা মেনে না চলে, তাহলে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে জরিমানা করা হবে।

নিয়ম অনুযায়ী সকল কোম্পানিকে নিয়মিত কর্মীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে, কেবলমাত্র ফেসমাস্ক পরিধান করা কর্মীদের কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে দিতে হবে, নির্দিষ্ট স্থানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং জীবাণুনাশক রাখতে হবে।

যদি কোন কোম্পানি এসকল করোনা নির্দেশনা এবং সতর্কতা অমান্য করে, তবে কোম্পানির মোট আয়তন এর উপর নির্ভর করে কোম্পানিকে জরিমানা করা হবে।

১ থেকে ৫ জন কর্মচারী সম্পন্ন ছোট কোম্পানির ক্ষেত্রে ১০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে, এবং কোম্পানির কর্মক্ষেত্র ৫ দিন বন্ধ থাকবে।

৬ থেকে ৪৯ জন কর্মচারী বিশিষ্ট কোম্পানির ক্ষেত্রে ২০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে, এবং কোম্পানির ফ্যাসিলিটি ৫ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে।

৫০ থেকে ২৪৯ জন কর্মচারী বিশিষ্ট কোম্পানির ক্ষেত্রে ৫০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে, এবং কোম্পানির কর্মক্ষেত্র ৫ দিন বন্ধ থাকবে।
২৫০ জন বা তার বেশি কর্মচারী বিশিষ্ট কোম্পানির ক্ষেত্রে ১ লাখ রিয়াল জরিমানা করা হবে, এবং কোম্পানির কর্মক্ষেত্র ৫ দিন বন্ধ থাকবে।

যদি কোম্পানি প্রথমবার জরিমানা প্রদান করার পরে পুনরায় করোনা সতর্কতা ও নির্দেশনাবলী অমান্য করে, তবে দ্বিগুন জরিমানা করা হবে।
রেস্টুরেন্ট এর ক্ষেত্রে প্রাইভেট সেক্টর এর জরিমানার বিধান প্রযোজ্য হবে না।

রেস্টুরেন্ট ও ক্যাফে তে প্রথমবার করোনা সতর্কতা অমান্যে ২৪ ঘন্টা বন্ধ, দ্বীতিয়বার অমান্যে ৪৮ ঘন্টা বন্ধ, তৃতীয়বার অমান্যে ১ সপ্তাহ বন্ধ, চতুর্থবার অমান্যে ২ সপ্তাহ বন্ধ, এবং পঞ্চমবার অমান্যে ১ মাস বা তার বেশি সময় বন্ধ রাখতে হবে।

জনসাধারণ এর জন্য করোনা সতর্করা অমান্যে জরিমানার বিধান

কেউ যদি ইচ্ছাকৃতভাবে করোনা সতর্কতা অমান্য করে তবে তাকে ১ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে। দ্বিতীয়বার অমান্যে জরিমানার পরিমান দ্বিগুণ হবে।

কেউ যদি মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে পারমিট ব্যাতিত প্রবেশ এর চেষ্টা করে তবে তাকে ১ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

যেকোন অননুমোদিত সম্মেলন বা জমায়েতে অংশ নেয়া প্রত্যেককে ৫ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে, দ্বিতীয়বার একই অপরাধে দিগুণ পরিমান জরিমানা করা হবে, এবং এর পাশাপাশি আদালতে হাজিরা দিতে হতে পারে।

যেকোন সম্মেলন বা জমায়েত এর আয়োজন করার জন্য ১০ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

জমায়েত এর পরিমান এর উপর নির্ভর করে এই জরিমানার পরিমান ১ লাখ রিয়ালে পৌঁছাতে পারে এবং আদালতে মামলা দায়ের হতে পারে।