‘স্যার তিন বার বিয়ে ভেঙেছে, এ বার পাশ করিয়ে দেন’

‘স্যার তিন বার বিয়ে ভেঙেছে, এ বার পাশ করিয়ে দেন’

ভারতের উত্তরপ্রদেশে চলছে দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা। পরীক্ষার খাতার লিখা দেখে স্তম্ভিত শিক্ষকরা। উত্তরপত্রে পরীক্ষার্থীদের নানা রকম ‘আবদার’ দেখে চোখ কপালে উঠার মতো। এক পরীক্ষার্থী লিখেছেন, স্যার আমার তিন তিন বার বিয়ে ভেস্তে গিয়েছে।

অনেক কষ্ট করে আমার পরিবার একটা সম্বন্ধ ঠিক করেছে। কিন্তু পাত্র শর্ত রেখেছে, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় পাশ করলে তবেই আমাকে বিয়ে করবে। আমার বিয়ে নিয়ে মা-বাবা খুব দুশ্চিন্তায় আছেন। দয়া করে পরীক্ষায় পাশ করিয়ে দিন। যাতে বিয়েটা হয়ে যায়!’ পরীক্ষার খাতায় ছাত্রীর এমন আবেদনে স্তম্ভিত হয়ে যান পরীক্ষকরা। খবর আনন্দ বাজার।

আরও এক পরীক্ষার্থী আবার লিখেছেন, অনেক সম্বন্ধ দেখার পর অবশেষে বিয়ে হয়েছে তাঁর। শ্বশুরবাড়ির লোকেরা চান তিনি আরও পড়াশোনা করুন। কিন্তু পড়াশোনার বিষয় তাঁর খুব একটা মনে থাকে না। তাই পরীক্ষকের কাছে অনুরোধ, ‘এ বার পাশ করিয়ে দিন, যাতে শ্বশুরবাড়িতে আমার সম্মান থাকে।’

শুধু এই ধরনের আর্জিই নয়, খাতার ভিতর থেকে ১০০, ২০০ এমনকি ৫০০ টাকার নোটও পাওয়া গিয়েছে বলে অভিযোগ। কেউ সেলোটেপ দিয়ে, কেউ সুতো দিয়ে সেই টাকা খাতার ভিতরে বেঁধে দিয়েছেন, যাতে উত্তরপত্র খুলতেই পরীক্ষকের নজরে পড়ে।

আরও পড়ুন...

বাবাকে নিয়ে বিখ্যাত ২৫ টি উক্তি

মাকে নিয়ে বিখ্যাত ৪০ টি বাণী

বিভিন্ন