তেলে পানি মিশিয়ে বিক্রির দায়ে ফিলিং স্টেশন মালিককে অর্থদণ্ড

তেলে পানি মিশিয়ে বিক্রির দায়ে ফিলিং স্টেশন মালিককে অর্থদণ্ড

নাটোরের লালপুরের গোপালপুরে জ্বালানি তেলের সঙ্গে পানি মেশানোর দায়ে মেসার্স সততা ফিলিং স্টেশনের মালিক সিদ্দিকুর রহমানকে ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার সকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ওই ফিলিং স্টেশন মালিককে জরিমানা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক।

জানা যায়, সকালে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করা অন্তত ২৫-৩০ জন শ্রমিক তাদের মোটরসাইকেলে পেট্রল নিতে গোপালপুরের মেসার্স সততা ফিলিং স্টেশনে যান।

এ সময় যে যার পরিমাণ মতো পেট্রল নিয়ে মোটরসাইকেল স্টার্ট দিতে গেলে আর স্টার্ট নেয় না। মোটরসাইকেল চালকদের সন্দেহ হলে তারা স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং পুলিশে খবর দেন।

পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাকের নেতৃত্বে ওই ফিলিং স্টেশনে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় তেলের সঙ্গে পানি মেশানোর প্রমাণ পান। পরে ফিলিং স্টেশন মালিক সিদ্দিকুর রহমানকে ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওই ফিলিং স্টেশনে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক বলেন, মঙ্গলবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লালপুর থানা পুলিশের সহায়তায় গোপালপুর পৌরসভার সততা ফিলিং স্টেশনে পরিচালনাকালে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। অভিযুক্ত ফিলিং স্টেশনের মালিক সিদ্দিকুর রহমানের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে তাকে ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি আরো বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত ক্রেতাদের অর্থ ফেরত দিতে এবং ফিলিং স্টেশনটি সাময়িক বন্ধ রেখে পানি মিশ্রিত পেট্রল অপসারণপূর্বক বিক্রয়যোগ্য তেল উত্তোলন করে পুনরায় চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

লালপুর ইউএনও শামীমা সুলতানা বলেন, ভোক্তাদের অধিকার সংরক্ষণে উপজেলা প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিভিন্ন