মৃ;ত্যুর এতো বছর পরও ফুরায়নি তার আবেদন, কাটেনি তার প্রভাব। বেঁচে থাকতেই তরুণ প্রজন্মের কাছে ক্রেজে পরিণত হয়েছিলেন। তার স্টাইল, ফ্যাশন ছিল ট্রেন্ড।

আর অকাল মৃ;ত্যু তাকে দিয়েছে অমরত্ব। আজও তার জনপ্রিয়তায় সমকক্ষ কেউ এই দেশের সিনেমাতে নেই।

এদেশে সর্বকালের সেরা স্টাইলিস্ট ও ফ্যাশনেবল আইকন হিরো সালমান শাহের আজ জন্মদিন। বেঁচে থাকলে এবারে তিনি ৫০ বছরে পা রাখতেন। জন্মদিনে অমর এই নায়ককে শ্রদ্ধায় স্মরণ করছেন তার ভক্তরা। সে তালিকায় আছেন ঢালিউডে বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় নায়কেরাও।

নায়ক শাকিব খান সালমানকে ‘ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক’ আখ্যা দিয়ে তার ফেসবুক লিখেছেন, ‘দ্যুতিময় এক শিল্পীর নাম সালমান শাহ। বেঁচে থাকলে তিনি আজ ৫০ বছরে পা রাখতেন।

হয়তো বয়সের ছাপ ফুটে উঠতো তার হাসিতে। গলায় ভর করতো গাম্ভীর্য। দুয়েকটা সাদাচুল দেখা গেলেও তার নায়ক সুলভ ব্যক্তিত্বের সামনে হয়তো কোনো পাত্তাই পেত না! তাকে নিয়েই ৫০তম জন্মদিনের সুর্বণ জয়ন্তী পালন করতাম।

বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে ক্ষণজন্মা এ মানুষটি ২৫ বছর আগে চলে গেলেও আজও আমার মনে সেই ২৫ বছরের তরুণ নায়ক হয়ে দাগ কেটে আছেন। যে দাগটা তাঁর প্রস্থানের এতো বছর পরেও জ্বলজ্বলে। অভিনয় জীবনে অল্পসময়ে এতো মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যে সত্যি দুর্লভ ভাগ্যের ব্যাপার, সেটা সালমান শাহকে দেখলে বোঝা যায়।

আজও বাংলার মানুষ তাকে আবেগ ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে, ভবিষ্যতেও করে যাবে। একজন মানুষ অমরত্ব পায় তার কর্মের মাধ্যমে।

সালমান শাহ নামক মহান শিল্পী অকালে চলে গিয়েও আমাদের কাছে অমর হয়ে আছেন। তিনি বেঁচে থাকবেন তার ভক্ত অনুরাগীদের হৃদয়ে, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে। শুভ জন্মদিন ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক সালমান শাহ।’

নায়ক সাইমন সাদিক তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন আবেগ এবং ভালোবাসা মিশ্রিত প্রিয় অভিনেতা সালমান শাহ। আপনি আজীবন আমাদের অহংকার হয়ে থাকবেন। আমরা বলবো আমাদের একজন সালমান শাহ ছিলেন, আছেন। মহান আল্লাহ আপনাকে জান্নাত দান করুন।’

সিনেমাপাড়ায় সবাই অভিনেতা সিয়াম আহমেদ নায়ক সালমান শাহর একজন ভক্ত হিসেবে জানেন। তার প্রথম সিনেমা ‘পোড়ামন-২’-তেও তিনি সালমানের এক অন্ধ ভক্তের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। আজ প্রিয় নায়কের জন্মদিনে তিনি তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখো’।

সালমান শাহ ১৯৭১ সালে সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় ১৯ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা কমর উদ্দিন চৌধুরী ও মা নীলা চৌধুরী। তিনি পরিবারের বড় ছেলে ছিলেন। ছোট ভাই শাহরান চৌধুরী ইভান।

তার পারিবারিক নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। সিনেমায় আসার পর তার স্ত্রী সামিরার সঙ্গে পরামর্শ করে নাম রাখেন সালমান শাহ। সেই নামের রোশনাই ছড়িয়ে গেছে সারা বাংলায়।